Monday, May 27, 2019

ভাত তত্ত্ব

কথাটি অনেক পুরোনো। 

"একটি ভাত টিপলেই নাকি পাতিলের সব ভাত সমানভাবে সিদ্ধ হয়েছে কিনা, তা বোঝা যায়।"

কথাটি সমাজে প্রায় সময়ই ব্যবহার করা হয়ে থাকে মানুষ ও তার গুণাবলীকে বিচার করার জন্য। কিন্তু, এই উদাহরণটি কতটুকুই বা বাস্তবমুখী তা আমরা কেওই গভীর ভাবে বিশ্লেষণ করে দেখিনি। প্রকৃতপক্ষে, আমাদের কারোরই সময় নেই এইগুলো নিয়ে ভাববার। 

আমরা খুব সহজেই একটি মানুষকে বিচার করে ফেলি তার কোনো একটি দিক বিবেচনা করে। আর এই ভুলের জন্যই কিন্তু আমাদেরকেই অনুতাপে ভুগতে হয়। প্রকৃতপক্ষে, কোনো মানুষকে কখনোই একপাক্ষিক ভাবে বিচার করা যায় না। মানুষকে যদি বিচার করতে হয় তবে তাকে বিচার করতে হবে সার্বিক দিক থেকে। কিন্তু সমাজে যেটি হয় থাকে তাহলো, একটি মানুষকে শুধু একটি খারাপ বা ভালো দিক থেকে বিবেচনা করে আমরা তাকে খারাপ বা ভালো মানুষ হিসেবে গণ্য করে থাকি। আসলেই কি সেই মানুষটি খারাপ বা ভালো মানুষ কিনা, তা আমরা কেওই সঠিক ভাবে বুঝে উঠতে পারি না। আমি অনেক আগেও বলেছি আমার বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে যে -

"বিশ্বের সবচেয়ে কঠিন কাজ হল, মানুষের মন বোঝা। কারণ, তার মনের ভেতরে কি চলছে তা কিন্তু আপনি কখনোই বুঝতে পারবেন না।" - সালমান আজিজ 

যাই হোক, এখন ভাতের উদাহরণে আসি। 

একটি পাতিলে যখন পানি দিয়ে চাল সিদ্ধ করা হয়, তখন কিন্তু আমরা পুরো পাতিলের ভাত সমানভাবে সিদ্ধ হয়েছে কিনা তা জানার জন্য একটি ভাত টিপেই ধরে নেই যে পুরো পাতিলের ভাত সমানভাবে সিদ্ধ হয়ে গেছে। কিন্তু, ওই একই পাতিলের নিচের বা তলার ভাতগুলো বেশ নরম হয়ে থাকে কারণ ওই ভাতগুলো চুলার আগুনের তাপ বেশি পেয়েছিলো। আবার পাতিলের ভেতরের উপরের অংশের দিকে লেগে থাকা ভাতগুলো অন্য ভাতের চেয়ে একটু শক্ত হয়ে থাকে, কারণ চালগুলো তেমন পানি আর আগুনের তাপ পায়নি। তাহলে বুঝতেই পারছেন যে, এই ভাত তত্ত্বটি পুরোপুরিই ভুল। কারণ, একটি পাতিলের সবগুলো ভাত সমানভাবে সিদ্ধ হতে পারে না। 

আমি জানিনা যে, এই ভাত তত্ত্বের আবিষ্কার কে বা কখন করেছে। আর কতটাই বা যুক্তিসঙ্গত তার কাছে ছিল। কিন্তু বাস্তবে এই যুক্তিটি সঠিক নয়। চাইলে আপনি নিজেও এর সত্যতা যাচাই করতে পারেন। আর তার চেয়েও বড় ভুল হলো মানুষকে ভাতের সাথে তুলনা করা।

আমি আমার বাস্তব জীবনের প্রেক্ষাপটে পাওয়া আরেকটি উদাহরণের কথা বলতে চায় যে -

"কখনও কখনও, আমরা কাঁচের টুকরো থেকে হীরাকে আলাদা করতে ব্যর্থ হয়। আমরা আমাদেরই আশেপাশে কিংবা পায়ের নিচে পড়ে থাকা হীরাকে ভুল করে চিনতে পারিনা। আমরা আবারো ভুল করে কাঁচের টুকরোকে হীরা ভেবে গয়নার দোকানে কিনার জন্য ছুটতে থাকি। আর যখন ভুল করে আমরা অনেক দাম দিয়ে কাঁচের টুকরোকে হীরা ভেবে কিনে আনি, তখন আমাদের সারা জীবনে হতাশার আর কোনো দিক থাকে না। তখন নিজেদের মনে প্রশ্ন জাগে, কেন আমরা এই ভুল জিনিস অনেক দাম দিয়ে কিনে এনেছি?" - সালমান আজিজ 

মানুষকে তুলনা করার জন্য কতই না তত্ত্ব আবিষ্কার হয়েছে। প্রতিনিয়তই আরো নতুন নতুন তত্ত্ব আবিষ্কার হবে। কিন্তু, সব তত্ত্বই মানুষকে পরিপূর্ণ ভাবে বিচার করতে পারেনা। তাই আমি আবারো বলবো মানুষকে কখনোই একপাক্ষিক ভাবে বিচার করা যাবে না। কারণ মানুষ পরিবর্তনশীল। 

"মানুষই নিয়ম বানায়, আবার এই একই মানুষই নিয়ম ভাঙে। শুধু সময়ের মাঝখানে অন্যদের ভালো বা খারাপের জন্য ভুগতে হয়।" - সালমান আজিজ  


লেখক - সালমান আজিজ ওরফে আকাশ 
সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত, ২০১৯
(বি.দ্র. লেখকের লিখিত অনুমতি ছাড়া কোথাও এটি প্রতিলিপি করা যাবে না।)

Wednesday, December 19, 2018

Types of People (Bangla)

মানুষের শ্রেণীবিভাগ

সকলের ধারণা মতে, মানুষের গুন এবং কর্মকাণ্ডের উপর ভিক্তি করে মানুষ দুই শ্রেণীর হয়ে থাকে। ভালো মানুষ আর খারাপ মানুষ। কিন্তু আমার ধারণা মতে, মানুষ পাঁচ শ্রেণীর হয়ে থাকে।

প্রথম শ্রেণীর হলো, সম্পূর্ণরূপে ভালো মানুষ; যারা ভেতর ও বাহির থেকে পরিপূর্ণভাবে ভালো হয়ে থাকে এবং আমরা তাদেরকে আদর্শ মানুষ হিসেবে বিবেচনা করে থাকি। এ শ্রেণীর মানুষ সবসময় ভালো কাজের জন্য সুফল আশা করে এবং সকলের মঙ্গল কামনা করে। কিন্তু বর্তমান সময়ের পেক্ষাপটে এ সকল ভালো মানুষ দিন দিন কমে যাচ্ছে নানান পারিপার্শ্বিক কারণে এবং ভবিষ্যতের কোনো এক সময়ে এ সকল ভালো মানুষের সংখ্যা প্রায় শূন্যের কাছাকাছি চলে যাবে।
  
দ্বিতীয় শ্রেণীর মানুষ হলো প্রথম শ্রেণীর সম্পূর্ণ বিপরীত; অর্থাৎ পুরোপুরি ভাবে খারাপ মানুষ, যাদের সমাজে অহরহ পাওয়া যায়। এ সকল শ্রেণীর মানুষেরা মনের ভেতর এবং বাহির থেকে পূর্ণভাবে খারাপ বা মন্দ হয়ে থাকে। এবং তাদের মস্তিষ্কে কুচিন্তা এবং কুক্রিয়াকালাপ ছাড়া কিছু আসে না। এরা সবসময় অন্য মানুষের ক্ষতি কামনা করে এবং খারাপ কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে অন্যের ক্ষতি সাধন করে থাকে। এ সকল মানুষের দুরাত্মা অধিক এবং এরা সমাজে অধিক ক্ষমতাশালী হয়ে থাকে।

তৃতীয় শ্রেণীর মানুষ হলো ওই সব মানুষ যারা ভেতর থেকে পরিপূর্ণ ভাবে খারাপ হয়ে থাকে কিন্তু বাহির থেকে তারা ভালো মানুষের মতো চলমান একটি অভিনয় করে থাকে। সাধারণ মানুষ এদেরকে ভালো মানুষের কাতারে সামিল করলেও, আমার মতে তারা ভুল করে। কারণ, এ শ্রেণীর মানুষগুলো পরিপূর্ণ ভালো মানুষ বা খারাপ মানুষ এই দুইটি দলের একটিতেও পরে না। এদের নিজস্ব বৈশিষ্ট্যের জন্য এরা ভিন্ন একটি শ্রেণীতে স্থান দখল করে। আর এই শ্রেণীই হলো তৃতীয় শ্রেণী, যারা সমাজে ভালো মানুষের মুখোশ পরে সমাজে লোক দেখানো ভালো কাজ করে, কিন্তু ভেতরে তারা নিজেদের স্বার্থ হাসিল করবার জন্য ভালো কাজের পেছনেও অন্য মানুষের ক্ষতি করে থাকে। আর এই লোক দেখানো সামান্য ভালো কাজের জন্য তারা সমাজে আধিপত্ব বিস্তার করে এবং নিজেদের স্বতন্ত্র স্থাপনের মাধ্যমে সমাজে শাসন করে। অবাক লাগচ্ছে? একটি সাধারণ উদাহরনের মাধ্যমে বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে। মনে করুন, আপনার খুব ভালো বন্ধু আপনাকে উপরে ওঠানোর জন্য মই দিয়ে সাহায্য করছেআপনি উপরে উঠার পরে আপনার বন্ধুর কাছে সাহায্যের জন্য চিরকাল কৃতজ্ঞ প্রকাশ করেন। কিন্তু যেই মইটি দিয়ে আপনাকে উপরে উঠতে সে সাহায্য করেছে, বাস্তবে সেই মইটিই হলো আপনার নিজের মই যেটি কিনা আপনার খুব ভালো বন্ধু নানান কৌশল অবলম্বন করে আপনার কাছে থেকে চুরি করেছে। কিন্তু আপনি সেই মইটিকে তার মই ভেবে আপনার বন্ধুর কাছে সাহায্যের জন্য ঋণী হয়ে থাকেন। এটাই বাস্তব! এই শ্রেণীর মানুষেরা ঠিক একই ভাবে নানান রূপে মানুষের কাছে থেকে তাদের বড় উদ্দেশ্য আদায় করে এবং বিনিময়ে আপনার জিনিস দিয়েই আপনাকে সাহায্য করে আপনার চোখে উপকারী এবং আদর্শ হয়ে উঠে।

চতুর্থ শ্রেণীর মানুষেরা হলো সেই সব মানুষ যারা ভেতর থেকে পূর্ণভাবে ভালো হয়ে থাকে কিন্তু বাহিরে কঠোরতার রূপের জন্য তাদেরকে মন্দ বলে বিবেচনা করা হয়ে থাকেএরা যতটাইনা বাহির থেকে কঠোরতা প্রদর্শন করে, এরা তার চেয়ে কয়েক গুন কোমল মনের হয়ে থাকে। যদিও সমাজে এদের সংখ্যা কম, তবে এরা বাহির থেকে যতটাই কষ্টদায়ক আচরন করুক না কেন, এরা ভেতর থেকে মানুষের জন্য মঙ্গল কামনা করে। একটি সাধারণ উদাহরণ দিয়ে স্বচ্ছ করা যাক বিষয়টি। মনে করুন, আপনার প্রতিবেশী একজন চোর। সে ধনী ব্যক্তিদের ধনসম্পদ চুরি করে। তবে সে চুরি করে নিজের জন্য না। সে চুরি করে দরিদ্র মানুষের জন্য এবং চুরির সম্পদ পুরোটাই দরিদ্র মানুষের মাঝে বিলিয়ে দেয়। বাস্তবে সম্পদগুলো তাদেরই প্রাপ্য, কারণ এই দরিদ্র মানুষের সম্পদ জুলুম করে নিয়েছিল উচ্চশ্রেণীর মানুষেরা। যদিও এই চতুর্থ শ্রেণীর মানুষ তাদের কর্মকাণ্ডের জন্য খারাপ হিসেবে গন্য হয়ে থাকে সমাজের চোখে। কিন্তু তারা ভালো মানুষ হিসেবে সেই সব মানুষের মনের ভেতরে থাকে যাদেরকে বিপদে সাহায্য করে নিঃস্বার্থ ভাবে।

আর সর্বশেষ শ্রেণীর মানুষ হলো সেই সব মানুষ যারা পুরোপুরি ভাবে নিষ্ক্রিয়। অর্থাৎ, এরা পূর্বের কোনো শ্রেণীতেই পরে না। এরা এতটাই নিষ্ক্রিয় যে তারা ইহজগতে ভালো বা মন্দ এই দুটোর মাঝে না থেকে একটি নিজস্ব আধ্যাত্মিক জগতে থাকেএদের সংখ্যা আমাদের সমাজে নেই বললেই চলে। প্রায় শূন্য দশমিক এক শতাংশ একশ শতাংশের ভেতরে বা তার চেয়েও কম হতে পারে। এরা বিরল শ্রেণীর মানুষ।

এ ছাড়াও উপরের শ্রেণীগুলো ছাড়া একটি বিশেষ শ্রেণীর মানুষের কথা বলবো, যারা ভেতর এবং বাহির উভয় দিক থেকেই ভালো ও মন্দ দুটোই হয়ে থাকে। যদি শতাংশ হিসেবে হিসাব করা যায় তাহলে এরা একশ শতাংশের ভেতরে পঞ্চাশ শতাংশ ভালো এবং পঞ্চাশ শতাংশ মন্দ অর্থাৎ সমানভাবে ভালো ও খারাপ দুটোই হয়ে থাকে। যার ফলে, এরা নিজেদের ও সবকিছু নিয়ে দ্বিধাদন্দতায় ভোগ করে। এরা হ্যাঁ এবং না দুটোরই মাঝে ঝুলে থাকে; যার ফলে তারা কিংকতব্যবিমুঢ় হয়ে পরেসমাজে এই শ্রেণীর মানুষ প্রায় নেই বললেই চলে। এদের সংখ্যা সমাজে খুবই নগণ্য।

এই ছিল আমার ধারণা মতে মানুষের শ্রেণী বিভাগ। এখন আপনি বলুন, আপনি কোন কাতারে পরছেন?

লেখক সালমান আজিজ ওরফে আকাশ
সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত, ২০১৮

(বি.দ্র. লেখকের লিখিত অনুমতি ছাড়া কোথাও এটি প্রতিলিপি করা যাবে না।)

Friday, May 25, 2018

A letter to the queen of the night (Bangla)

প্রিয় রাত্রির রাণী,

রূপালী চাঁদের আলো মুড়িয়ে তুমি আসো তোমার শুভ্রতার অপরূপ সৌন্দর্য নিয়ে । তুমি আসো, যখন কালো রাতের কালো মেঘের কোলে বাঁকা চাঁদ তার মিষ্টি হাসি দিয়ে তার ঝলমলে আভাতে চারিপাশ ভরিয়ে তোলে । তুমি আসো, যখন শুকতারা একলা আকাশে গভীর অপেক্ষায় থাকে শুধু তোমার দেখা পাবার জন্যে । প্রিয় রাত্রির রাণী, তুমি কি জানো তুমি কত সুন্দর ? তুমি কি কখনো তোমার প্রতিচ্ছায়া দেখেছো সর্পিল নদীর তীরে ? জোনাকিরা যখন চারিপাশ তারার মতন ঝলমলে করে তোলে, ঠিক তখন তুমি আসো কোনো এক বাঁকা নদীর কোলে তোমার রূপের বিমোহিত করা আলো নিয়ে । কি অপরূপ স্নিগ্ধতায় ভরা তোমার রূপখানি, যেন একটি হীরকখন্ড চারিপাশ তার আভায় আলোকিত করে তোলে ! তোমার এই মোহনিয়তায় ভরা সৌন্দর্য দেখতে কত যে প্রাণ হাজার বছর ধরে অপেক্ষাই আছে শুধু একটি ঝলক দেখা পাবার আশায় ! প্রিয় রাত্রির রাণী, জানো মাঝে মধ্যে না আমার খুব ঈর্ষা হয় তোমার ক্ষণিক লোভনীয় রূপে । তুমি আসো ক্ষণিক সময়ের জন্যে । তুমি আসো গভীর রাতে শুধু তাদের জন্যে যারা বহুকাল ধরে তোমার অপেক্ষায় আছে । আজও তারা অপেক্ষায় আছে তোমার শ্বেত বরণ কায়ার মোহনিয়া সুবাস নেবার জন্যে । সেই মনোরম মৃদু সৌরভ যেন চারিপাশকে করে তোলে চুম্বকের মতো আকর্ষণীয় । আর এই কোমল মন হরণ করা ঘ্রাণ করে তোলে নিস্তব্ধ অন্ধকারের চাদর পরা রাতকে প্রেমময়, করে তোলে সুমধুর । কিন্তু যখন উষ্ণতাহীন রক্তিম সূর্য পূর্ব নীল আকাশে মেঘের কোলে উঁকি দেয়, তখন তুমি চলে যাও বহুদূরে । আমি জানি, তোমার এই ক্ষণিক দেখা পাবার প্রতীক্ষাই কত যে প্রহর গুনতে হয় । হয়তোবা এই প্রতীক্ষাকেই বলে ধৈর্যের চরম পরীক্ষা । আমি জানি, তুমিই তো পবিত্রতার প্রতীক, মুগ্ধ করা বিলুপ্ত সৌন্দর্যের প্রতীক আর গভীর ধৈর্য ধরে হৃদয় থেকে ভালোবাসার প্রতীক । আমি জানি, হয়তোবা কোনো নদীর তীরে বা কোনো এক একাকী বনে বা কোনো এক পাহাড়ের চূড়ায় বা কোনো এক ঝরণা ধারায় কত যে চক্ষুযুগল তোমার দেখা পাবার আশায় আজও বসে আছে । তুমিও জানো, আমিও আছি হাজার প্রাণের ভিড়ে তোমার পথ চেয়ে গভীর প্রতীক্ষাই ।

তোমার
সৌন্দর্যের গরিমা ।

লেখক – আকাশ ওরফে সালমান আজিজ
সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত, ২০১৮

(বি.দ্র. লেখকের লিখিত অনুমতি ছাড়া কোথাও এটি প্রতিলিপি করা যাবে না ।)

Read in English

A letter to the queen of the night

Beloved queen of the night,

Wrapped in silver moonlight, you come with your amazing beauty of whiteness. You come, when the curved moon gives her sweet smile in the lap of the dark cloud in the dark night to fill everywhere with her glazing light. You come, when the evening star deeply in anticipation in the lonely sky only for you to see. Dear queen of the night, do you know how much you are beautiful? Have you ever seen your shadow on the riverbank of the spiral? When the fireflies make everywhere glittering like stars, at that time you come in any in the lap of a curved river with your light of hypnotizing beauty. How incomparable softness your face is, like a piece of diamond enlightens everywhere by its light! To see your enchanted beauty how many souls are waiting for thousands of years, just hoping for a glimpse! Beloved queen of the night, do you know, sometimes I feel so envy with your ephemeral alluring beauty. You come for a moment. You come in the deep night only for them who are waiting for you for a long time. Even today they are waiting for to take the aroma of your white charming body. The delightful, gentle fragrance makes everywhere attractive as the magnet. And this mind hunting tender scent makes the silent night covered with shining dark cloth loving, makes it melodious. But when the cold blood shaded sun peeps on the east side of the cloud of blue sky, then you go far away. I know, how many hours to count waiting for seeing a glance of you. Maybe this waiting is called the ultimate test of patience. I know that you are the symbol of innocence, the symbol of extinction fascinating charm and the symbol of the love from the heart with deep patience. I know, maybe on the banks of a river or in the lonely woods or on the top of a mountain or in a fountain, so many eyes are still waiting in a hope to see you. You also know, I am also deeply waiting for you on your way in the crowd of thousand lives.

Yours
The glory of the beauty.

Written by – AKA$H a.k.a. Salman Aziz
All Rights Reserved, 2018
(N.B. Do not copy this in anywhere without author’s written permission.)

Read in Bangla

Monday, December 11, 2017

Depression (Poem)

Depression

Oh no! Why my head is spinning around?
Oh no! What that strangest feelings in my mind?
Oh no! Why my BP is rising so high?
And why my body is getting colder like ice?
I know. I know. I know
I am upset too much
I know. I know. I know
I got hurt in my mind.
I know. I know. I know
I need a doctor for.......
(To get rid of that depression)

Oh no! I am in the consultant center
My doctor asked me, what's the matter?
I told him, I am in too much tension
(And I can't sleep in the night).
He told me, why you've made your life so complicated!
Take this medication twice by mouth every day.
This medication helps you to forget all your tensions
And these things are the sciences latest creation.
I love those that the doctor says.
And thanked him by the pay!
And I know. I know. I know
I am in depression
I know. I know. I know
I need to take those medications
I know. I know. I know
That will help me to get rid all my tension
So.....
Now I'm on my medication.........

Oh no! I can't sleep in the night
I walk around for a long time.
So, I take some sleeping pills at the midnight
To have some sleep for the whole night.
Oh no! I get the blur sight
So, I put on the blanket and lie down on my bed
I know. I know. I know
The sleeping pills won't work
I know. I know. I know
I can't sleep tonight
So.... I take overdose medication
To have some sleep tonight.

My head is numb
And I can't feel anything now
I can't think
I can't open my eyes
I've forgot everything
Now my head is empty
My mind is light
I feel great
I will be free tonight
But.
I am in very depression
So, I take too much medication
To get rid of those tension (Oh yeah!)

Rewritten by – AKA$H a.k.a. Salman Aziz
All Rights Reserved, 2017
(Originally written in 2015)

Tuesday, June 6, 2017

ME (Poem)

ME

Who I am?
What I am?
How I am?
Where I am?
Why I am?
I don't know!
I just know & what you know about me,
It's not enough!
Cause…

I am the beginning and I am the ending!
I am perfect, but I am imperfect!
I am good, and I am bad!
I am inside but I am outside!
I am known but I am unknown!
I am real, and I am fake!
I am true, and I am false!
I am right, and I am wrong!
I am happy, but I am sad!
I am smiling but I am crying!
I am famous, but I am infamous!
I am talking but I am speechless!
I am worthy, and I am priceless!
I am the light and I am the darkness!
I am the hope, but I am hopeless!
I am clear, and I am blur!
I am alive, but I am dead!
I am breathing but I am breathless!
I am watching but I am blind!
I am creator and I am destroyer!
I am interesting, and I am ridiculous!
I am angel and I am devil!
I am decent, and I am bold!
I am ugly, and I look good!
I have everything, but I have nothing!
I am with everyone, but I am alone!
I am free, but I am caged!
I am listening, but I am deaf!
I am hard, and I am soft!
I am emotional, and I am heartless!
I am climbing up, but I am falling!
I am smart, and I am idiot!
I am up but I am down!
I am curve and I am straight!
I am rich, but I am poor!
I am complement but I am controversy!
I am aware, but I am unaware!
I have faith, but I don't have!
I am confidence, but I am not!
I am the dream, but I am nightmare!
I am love, and I am hatred!
I am the color and I am colorless!
I am ice and I am fire!
I am fearless, but I am afraid!
I am pure, and I am sinful!
I am aged, but I am young!
I am scholar, but I am not!
I am destiny, but I am way less!
I am everything, but I am nothing!
I don't know who I am? What I am?
But I want to tell that I am full of mystery!

Written by - AKA$H a.k.a. Salman Aziz
All Rights Reserved, 2017

(The poem is about the writer himself. The poem is recreated and reposted again.)

Friday, March 31, 2017

Prostitution

Prostitution

After the creation of this mother earth, people did sex trade from the beginning. It is continuing to our time and will continue till the world ends. Because it is prostitution! It is about sex that every people like for self-satisfaction.

In general, we know that the prostitution is a profession where people sell sex for the money or something. In my word, prostitution is a work where not only people (women or men) sell their sex for the satisfaction of their customer but also buy a losing dignity. In the moment of my writing this blog, around this world in a corner may be one boy or girl force to become a prostitute. The person who hold this profession called sex worker/ prostitute/ whore/ slut/ kinky/ bitch/ sex slave/ harlot/ escort/ call girl or boy etc.

In our society, hardly a person willingly becomes a prostitute. Cause in this world, the most hateful and painful job is prostitution. Most of the time so many people become prostitute by forcedly. But why people do this? Right! Because of money! To survive in this cruel and harsh world, people have to buy food for the hunger, sleep under a roof to get a shelter, buy clothes to hide their body and buy medicine to get rid of from the sickness.

You will be amazed if you know who the customers are! From rich people to poor people almost everyone is the customer of those prostitutes. The suited men who are pretend to be gentle they are the nastiest people, because they buy the body of the prostitute. Even the pious people who are pretend to be very religious, they are also the customers of these prostitutes. And the rest, nothing to say! You may be got it! From rich to poor, young to old, gentle to nasty everyone buys the body of prostitutes.

You know that we are living a kind of society where people wear a mask of the good people. But they are the real nasty people behind the mask. They tell something in front of anyone and they do something behind. They protest the prostitution to stop but they are the real customers of the prostitute. The world is so nasty place where no one is safe. Anyone can be the victim of anything.

In this world you will hardly find someone who willingly does prostitution. Most of the prostitutes do the prostitution by force of anything. In the society there are a bunch of people who always try to take advantages from others. When they get any weakness of anyone then they use the person for their own benefits. Somehow, they force to sell the body of that person to others to get money. Those people are better known as pimp. Pimp can be anyone, men or women, they pretend to be normal person in the society but when the sun goes down they become what they are! They show their vicious face in the dark! When a person get trap in their net, that person never can go back.

In our society, we can get two kinds of prostitute. One is from outside and other from inside. I mean, the outside prostitutes are known as street prostitutes. They do prostitution in/on the street place like street, park, hotels etc. They also do sex trade in the bus, train, car, parking plot etc. And the inside prostitutes are known as brothel’s prostitutes. In here customers come to them and do sex where they stay. In a big house a manager maintains the brothel. In 24 hours a day, every kind of customer comes here, and they do sex and pay the prostitutes.

In prostitution, there is no rule for age. But young prostitutes are very demandable to the customers, where old prostitutes go vulnerable to the brothels. When they have sexy body and beautiful face, they sell so good. But at the certain age their demand goes down. Sometime pimp force to eat some kind of supplement to grow older when they are too young for the prostitution. In this world the number of female prostitutes is so larger than male prostitutes. Because female prostitutes are all time demandable by the male even the female customers. But in male prostitutes, male customers mostly choose the young boys for their sex hunger. They also choose the grown-up boys and men for the sex. Even the women choose the young boys, sometime men for the sex. The virgin prostitutes are highly demandable for the rich people. They love to buy the virgin prostitutes with a very high price.

I don’t want to mention any country name in my blog. Because everybody knows that the prostitution is happening in every country in this earth. In some country prostitution is legal and in some country, it is totally illegal. But in those illegal countries, the government people are the first and real customers of the prostitutes in there. And the rest of the people are also in the list.

In this world two things are very real; one is food for hunger and other is sex for making the next generation with pleasure. But only for money people do human trafficking, sex trade, body shop, make brothels etc. No wonder but so true! It is still happening! Sometime boys and girls go missing! Those boys and girls are the victim of human trafficking! They get high force to become prostitutes. If they don’t do that, they’d beaten up, raped so many times and drugged to become prostitutes. They even meet with mentally torture so badly. They don’t get any good food or drink. They just like a living dead. Sometimes they get ill with very dangerous illness like AIDS, cancer etc. And you will cry if you know what they do with their dead body when they died. They not even get any funeral! Their body kicked in a dump and left for the foxes as food.

In this world who becomes a prostitute willing he/she does it only for money/fame or something else. In the entertainment world if you want to be famous then you have to sacrifice in a certain point. If you see the behind of fame/ power of famous/ powerful person, you will get that in someday he/she secretly had sex with someone to get famous, powerful and money. Or they provide prostitutes to them to get the fame, power and money. This is so real! And it is happening! But hardly people accept it. Because when they get famous/ powerful/ rich, their fame/power/money shades their bad deeds. For the money they not even feel ashamed for that. They also don’t feel ashamed to force their own children to become sex slave for their rich and powerful clients.

But people may ask me why I am writing this? Now I want to leave the answer inside your mind! Why I shouldn’t? I know! It is not my business! If you have the real heart and good mind you can figure it out. Now I have to stop writing! If I write more about it, people will be angry on me!

Written by – AKA$H a.k.a. Salman Aziz
All Rights Reserved, 2017